,

আজ মধুকবির ১৯৮তম জন্মবার্ষিকী

নিজস্ব প্রতিবেদক: মহাকবি মাইকেল মধুসূদন দত্তের আজ ১৯৮তম জন্মবার্ষিকী। মাইকেল মদুসূদন দত্ত বাংলা ভাষায় সনেট ও অমিত্রাক্ষর ছন্দের প্রবর্তক ছিলেন। তিনি সুদূর ফ্রান্সের ভার্সাই নগরীতে বসে মাতৃভাষা বাংলায় তার লেখনী কবিতা ও সাহিত্যের মাধ্যমে সবাইকে জানান দিয়েছেন যে বাঙালি হিসেবে তিনি গর্বিত।

তার রচিত ‘মেঘনাদবধ কাব্য’, নাটক ‘শর্মিষ্ঠা’, ‘বুড়ো শালিকের ঘাঁড়ে রো’, ‘কৃষ্ণকুমারী’ বাংলা সাহিত্যের চিরকালীন সম্পদে পরিণত হয়েছে। প্রথমে তিনি ইংরেজিতে সাহিত্য রচনায় মনোযোগী হন। তবে পরে বাংলায় সাহিত্য রচনায় ফিরে আসেন। তার বাংলায় রচিত সাহিত্য মানুষের মধ্যে ব্যাপক সমাদর লাভ করে।

মাইকেল মধুসূদন ১৮২৪ সালের ২৫ জানুয়ারি কেশবপুর উপজেলার কপোতাক্ষ নদের তীরে সাগরদাঁড়ি গ্রামে বিখ্যাত দত্ত পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন। তার পিতা রাজনারায়ণ দত্ত ছিলেন জমিদার। মা ছিলেন জাহ্নবী দেবী। মধুসূদনের প্রাথমিক শিক্ষা শুরু হয় মা জাহ্নবী দেবীর কাছে।

১৩ বছর বয়সে মদুসূদন দত্ত কলকাতায় যান এবং স্থানীয় একটি স্কুলে কিছুদিন পড়াশোনার পর তিনি সেই সময়কার হিন্দু কলেজে (বর্তমানে প্রেসিডেন্সি বিশ্ববিদ্যালয়) ভর্তি হন। তিনি বাংলা, ফরাসি ও সংস্কৃত ভাষায় শিক্ষা লাভ করেন। এরপর তিনি কলকাতার বিশপস কলেজে অধ্যয়ন করেন। এখানে তিনি গ্রিক, ল্যাটিন ও সংস্কৃত ভাষা শেখেন। পরবর্তী সময়ে আইনশাস্ত্রে পড়ার জন্য তিনি ইংল্যান্ডে যান।

ঋণ ও অসুস্থতায় মধুসূদন দত্তের শেষ জীবন দুর্বিষহ হয়ে উঠেছিল। ১৮৭৩ সালের ২৯ জুন কলকাতায় শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন এই মহাকবি। কলকাতায় তাকে সমাধিস্থ করা হয়।

এই বিভাগের আরও খবর


AllEscort