,

১৮ জেলার প্রতিযোগিকে হারিয়ে কাশিয়ানীর নাসিরের স্বর্ণপদক জয়

কাশিয়ানী প্রতিনিধি: বঙ্গবন্ধু জাতীয় শাওলীন ও উডাং কুংফু প্রতিযোগিতায় দেশের ১৮টি জেলার ৬৫ প্রতিযোগিকে পিছনে ফেলে প্রথম স্থান অধিকার করে স্বর্ণপদক পেয়েছেন কাশিয়ানীর যুবক মো. আলীমুজ্জামান নাসির (২৪)।

বাংলাদেশ শাওলীন ও উডাং কুংফু ফেডারেশনের আয়োজনে কিশোরগঞ্জে ২৭-২৮ ডিসেম্বর দুই দিনব্যাপী এ প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়। এতে বাংলাদেশের ১৮টি জেলা ৬৫ জন প্রতিযোগি অংশ নেন।

গত মঙ্গলবার (২৮ ডিসেম্বর) কিশোরগঞ্জের নেহাল গ্রীণ পার্কে পৌর মেয়র মাহমুদ পারভেজ প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে স্বর্ণপদক জয়ী মো. আলীমুজ্জামান নাসিরের হাতে পদক তুলে দেন।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মাদ আলী সিদ্দিকী, বাংলাদেশ শাওলীন এন্ড উডাং কুংফু এসোসিয়েশনের সভাপতি ইফফাত আরা, সাধারণ সম্পাদক মো. রেজাউল করিম, জেলা ক্রীড়া অফিসার আল আমিন, নেহাল গ্রীণ পার্কের পরিচালক ওসমান গণি, বাংলাদেশ কুশু অ্যাসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক মেজবাহ উদ্দীন প্রমুখ।

মো. আলীমুজ্জামান নাসিরের বাড়ি গোপালগঞ্জের কাশিয়ানী উপজেলার খায়েরহাট গ্রামে। বাবা সাংবাদিক মো. পান্নু শিকদার। মা রেবেকা বেগম গৃহিনী। তিনি ফরিদপুর জেলার আলফাডাঙ্গা উপজেলার মালা মুহাম্মাদীয়া হাফেজিয়া মাদ্রাসা থেকে ২০১৪ সালে হেফজ শেষ সম্পন্ন করেন। এরপর ঢাকার দক্ষিণ যাত্রাবাড়ী জামিয়া ইসলামীয়া দারুল উলুম মাদানিয়া মাদ্রাসায় জামাত বিভাগে অধ্যয়নের পাশাপাশি ঢাকার মেজবাহ মার্শাল আর্ট একাডেমিতে অনুশীলন করেন।

স্বর্ণপদক জয়ী আলীমুজ্জামান নাসির বলেন, এ অর্জন আমার প্রিয় শিক্ষক মেজবাহ উদ্দীনের। যিনি আমাকে নিজের সন্তানের মতো শিক্ষা দিয়েছেন। যার অনুপ্রেরণা ও সার্বিক সহযোগিতায় আজ আমি প্রথম হতে পেরেছি। আমি স্যারের প্রতি চিরকৃতজ্ঞ।

কাশিয়ানী সদর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোহাম্মাদ আলী খোকন বলেন, ‘আলীমুজ্জামান নাসির ৬৫ প্রতিযোগিকে হারিয়ে প্রথম স্থান অধিকার করে স্বর্ণপদক জয় করেছেন। এ অর্জন আমাদের অনেক বড় প্রাপ্তি। নাসির কাশিয়ানীবাসী তথা গোপালগঞ্জ জেলার মুখ উজ্জ্বল করেছেন। নাসির আমাদের গর্ব। আমি তাঁর জীবনের সর্বাঙ্গীন মঙ্গল ও উজ্জ্বল ভবিষ্যৎ কামনা করছি।’

এই বিভাগের আরও খবর


AllEscort