,

বাবা হওয়ার দিনেও মহাদুঃশ্চিন্তায় কোহলি

বিনোদন ডেস্ক: ১১ জানুয়ারি। দিনটা ভারতীয় ক্রিকেটের জন্য বিশেষ কিছু। এ দিনই যে জন্ম নিয়েছিলেন দ্য ওয়াল খ্যাত রাহুল দ্রাবিড়। ভারতীয় ক্রিকেটে কিংবদন্তীদের তালিকা করলে যার নাম অবধারিতভাবেই থাকবে সেরা পাঁচে। টেস্ট ক্রিকেটটা কিভাবে খেলতে হয়, শৈল্পিক ছন্দে যিনি বার বার দেখিয়েছিলেন ক্রিকেট দুনিয়াকে।

তবে ২০২১ সালে এসে এ দিনটা ভারতীয় ক্রিকেট বোদ্ধারা মনে রাখবেন আরও দুটো কারণে। এক নম্বর, সিডনি টেস্টের অবিস্মরণীয় ড্র। পৃথিবীর সেরা ম্যাচের তালিকায় না থাকলেও, সংক্ষিপ্ত তালিকাতে যে ম্যাচটা জায়গা করে নিবে তা হলফ করেই বলা যায়। হনুমা বিহারি এবং রবিচন্দ্রন অশ্বিনের বীরত্ব গাঁথা বহুদিন গল্পের মতো শোনা যাবে ভারতীয় ক্রিকেটে।

দ্বিতীয় কারণটা তাদের নিয়মিত অধিনায়ক বিরাট কোহলি। এই ১১ জানুয়ারি যে প্রথমবারের মতো বাবা হলেন তিনি। তার স্ত্রী বলিউড অভিনেত্রী আনুশকা শর্মার কোলজুড়ে এলো এক রাজকন্যা। ভিরুস্কা জুটির এ আনন্দ যে এখন পুরো ক্রিকেট দুনিয়ার।

তবে আনন্দের এ দিনে খুব কি স্বাচ্ছন্দে আছেন বিরাট? কি মনে হয়? মনে হয়, না।

কারণ, ভারতীয় দলের অতিমানবীয় এ পারফরম্যান্সগুলো যে বিরাটকে ছাড়াই হচ্ছে। অনেকে বলতে পারেন, তাতেই কি বা আসে যায়? কোহলি ফিরলেই আবারx আগের জায়গাটা তাকে ফেরত দেবে বিসিসিআই। এটাই বাস্তবতা।

কিন্তু, একবার ভেবে দেখুন তো, বিষয়টা কি এখন আর এতোটা সহজ রয়েছে? বিরাটের অনুপস্থিতিতে রাহানের অধিনায়কত্ব, দলের নজরকাড়া পারফরম্যান্স কি প্রশ্ন তুলবে না কোহলির জায়গা নিয়ে? হ্যাঁ, হয়তো ব্যাটসম্যান বিরাট কোহলির জায়গা দখল করার মতো এখনো কেউ নেই ভারতে। কিন্তু, অধিনায়ক কোহলি? কতটা সুরক্ষিত সে মসনদ?

মহেন্দ্র সিং ধোনির হাত থেকে ব্যাটনটা নেয়ার পর থেকেই উড়ছেন বিরাট কোহলি। কিন্তু, ভারতীয় দল? বিশ্বকাপ, চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি, ওয়ার্ল্ড টি-টোয়েন্টি সব জায়গাতেই ব্যর্থ কোহলির ভারত। টেস্টে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে একটি টেস্ট জয় ছাড়া সাদা পোশাকেও দেশের বাইরে টিম ইন্ডিয়ার পারফরম্যান্স সমালোচনার ঊর্ধ্বে নয়।

যে আইপিএল দিয়ে বিচার করা হয় তরুণ প্রতিভাদের। দেখা হয় ক্রিকেটারদের টেম্পারমেন্ট। সেখানেও ব্যর্থ বিরাট কোহলি। এতোগুলো আসরে পানির মতো টাকা ঢেলেও একটা শিরোপা ছুঁতে পারেননি তিনি।

অন্যদিকে, যে রোহিত শর্মার সঙ্গে দা-কুমড়া সম্পর্ক অধিনায়কের, তার ক্যাপ্টেন্সির গল্পটা কিন্তু সাফল্যমণ্ডিত। আইপিএলের সবচেয়ে সফল অধিনায়ক রোহিত। আছে ৫টা শিরোপা। ১০৬ ম্যাচ খেলে জিতেছেন ৫৮ শতাংশ ম্যাচেই। জাতীয় দলেও বজায় আছে সে ধারাবাহিকতা। টি-টোয়েন্টিতে ১৯ বার টস করতে নেমে, মাত্র ৩ বার হেরেছেন রোহিত। আর ওয়ানডেতে তার জয়ের হার ৮০ ভাগ। যেখানে কোহলির জয় সাড়ে ৭০ শতাংশ। আর টি-টোয়েন্টিতে ৬৫ শতাংশের কিছু বেশি।

রোহিতকে বাদ দিলেও, আরও একজন প্রতিদ্বন্দ্বী এখন সামনে চলে এসেছে কোহলির। আজিঙ্কা রাহানে। সাদা পোশাকে তার ক্যাপ্টেন্সি, দল পরিচালনা অবাক করেছে ক্রিকেট বোদ্ধাদের। এখনও পর্যন্ত টেস্ট অধিনায়ক হিসেবে অপরাজিত তিনি। ৪ টেস্টে ৩ টিতেই জয় পেয়েছেন অধিনায়ক রাহানে। আর একটিতে করেছেন ড্র।

ব্যাটসম্যান হিসেবে দিনের পর দিন নিজেকে অনন্য এক উচ্চতায় তুলে নিয়ে যাচ্ছেন বিরাট কোহলি। কিন্তু, উল্টো দিকে ঠিক ততটাই ভারতকে পেছনে ঠেলেছেন অধিনায়কত্ব দিয়ে।

বিসিসিআই’র সামনে এখন বড় প্রশ্ন, আগামী তিন বছরে টানা তিনটি আইসিসির টুর্নামেন্টে কোহলিকে নিয়েই যাবে ভারত, না নতুন কোন নেতৃত্ব আসবে শিরোপা খরা ঘুঁচাতে?

এই বিভাগের আরও খবর


AllEscort