,

ঢাকা এখন অনেকটাই ফাঁকা

নিজস্ব প্রতিবেদক: ব্যস্ত শহর ঢাকার দৃশ্য পাল্টে গেছে। চিরচেনা যানজট নেই। মোড়ে মোড়ে গাড়ি অপেক্ষায় থাকতে হচ্ছে না। পবিত্র ঈদুল ফিতরের জন্য সবাই ছুটছে বাড়ির পানে। ফলে ঢাকা এখন অনেকটাই ফাঁকা।

মূলত বৃহস্পতিবার (২৮ এপ্রিল) বিকেল থেকেই মানুষের ও গাড়ির চাপ কমতে থাকে। ওইদিন ঈদের আগে সরকারি প্রতিষ্ঠানে শেষ কর্মদিবস ছিল।

চাঁদ দেখা সাপেক্ষে, ২ অথবা ৩ মে অনুষ্ঠিত হবে মুসলমানদের অন্যতম ধর্মীয় উৎসব ঈদুল ফিতর। শুক্রবার থেকে শুরু হচ্ছে টানা ছয় দিনের সরকারি ছুটি। ফলে শহরের মানুষ আগে থেকেই শুরু করেছে বাড়ি যাওয়া। ঢাকার যানজট নেই তবে বিভিন্ন মহাসড়কে যানজট বেড়েছে। ফেরিঘাটে পদ্মা পারের অপেক্ষায় রয়েছে শত শত যানবাহন। তবে ঢাকার যানজট কমায় স্বস্তিতে এই মুহুর্তে নগরবাসি।

শনিবার (৩১ এপ্রিল) রাজধানীর গুরুত্বপূর্ণ সড়ক গুলোতে বড় কোনো সিগন্যাল ছিল না। বেশিরভাগ মানুষের গন্তব্য বিভিন্ন টার্মিনালে।

শনিবার সকালে ফার্মগেট থেকে বনানী যান ইব্রাহিম হোসেন। এই পথ পাড়ি দিতে সময় লেগছে ১৫ মিনিট। অথচ অন্য যে কোনো সময় দেড় ঘন্টা বা আরো বেশি সময় লাগে বলে জানান তিনি।

বিকল্প পরিবহনের চালক জুলফিকার বলেন, পল্টন থেকে ফার্মগেট আসছি ২০ মিনিট। এরমধ্যে যাত্রীও উঠিয়েছি নামিয়েছি। এটা অবিশাস্য। ঢাকা যদি সব সময় এমন থাকতো।

রাজধানীর সিএনজি চালক ছবুর উদ্দিন বলেন, সকালে মতিঝিল থেক খ্যাপ নিয়া গাবতলি যাই ৪০ মিনিটে আবার গাবতলি থেকে নিউমার্কেট গেছি তখনো সময় লাগছে খুবই কম। তবে মার্কেটের সামনে মানুষের ভিড় আছে তাই একটু সময় লাগে বলেন তিনি। তবে অন্য সময় হলে মতিঝিল থেক গাবতলি যেতেই যান শেষ হইয়া যাইতো দিনেরও অর্ধেক নাই।

বিজয় স্বরণি মোড়, ফার্মগেট, কারওয়ান বাজার, শাহবাগ, বনানী, গুলশান এলাকায় দেখা গেছে গাড়ি চলছে বাধাহীনভাবে। যদিও কোনো মোড়ে একটু থামতে হয় সেটিও দু’এক মিনিটের জন্য।

তবে আসাদগেট, এলিফ্যান্ট রোড, বসুন্ধরার সামনে একটু একটু যট থাকলেও খুব বেশি নয়। এইসব এলাকায় মার্কেটের কারণে অনেকেই রাস্তা পাড়াপাড়ে সময় গাড়ির গতি স্লো হয়ে যাচ্ছে।

ফার্মগেট থেকে সায়েদাবাদের জন্য গাড়িতে উঠেন আবুল হাশেম বলেন, এমন ফাঁকা ঢাকায় থাকতে মজাই আলাদা। তবে ঢাকা ফাঁকা হচ্ছে মানুষ বাড়ি যাচ্ছে। যারা ঢাকায় ঈদ করবেন তারা কয়েকটা দিন স্বস্তিতে থাকবেন।

ট্রাফিক বিভাগের একাধিক কর্মকর্তা বলেন, মূলত বৃহস্পতিবার শেষ কর্মদিবস হওয়াতে শুক্রবার শহরে একেবারেই যানজট ছিল না। যতোটুকু ছিল সেটা মার্কেট এলাকা ভিত্তিক। কেননা মানুষ অনেক রাত পর্যন্ত কেনাকাটা করছেন ওই এলাকায় একটু ট্র্যাফিক থাকবেই। আর কিছুটা ট্র্যাফিক আছে টার্মিনাল কেন্দ্রীক। সব মানুষের যাত্রা টার্মিনালমুখি হওয়াতে সেখানেও চাপ বেড়েছে। অন্য কোনো সড়কে একেবারেই যানজট নেই।

এদিকে ঢাকা থেকে বের হওয়ার বিভিন্ন সড়কে যানজটের খবর পাওয়া গেছে। বিশেষ করে গাজীপুর পর্যন্ত ধিরে চলছে গাড়ি। ঢাকা টাঙ্গাইল মহাসড়ক, ঢাকা আরিচা মহাসড়কে সাভার পর্যন্ত ধিরে চলতে হচ্ছে।

এদিকে এবার করোনার পর ঈদ যাত্রায় ভোগান্তির কথা মাথায় রেখে আগেই বাড়িতে পাঠিয়ে দেন অনেকেই তাদের পরিবারকে।

এই বিভাগের আরও খবর


AllEscort