,

গোপালগঞ্জে প্রথমবারের মতো নারীদের ঈদের নামাজ আদায়

File Photo

গোপালগঞ্জ প্রতিনিধি: ধর্মীয় ভাবগাম্ভীর্য ও উৎসাহ উদ্দীপনার মধ্যদিয়ে উৎসবমুখর পরিবেশে গোপালগঞ্জে পবিত্র ঈদুল ফিতর পালিত হয়েছে।

মঙ্গলবার (৩ মে) সকাল ৮ টায় গোপালগঞ্জ কেন্দ্রীয় পৌর ঈদগাহ ময়দানে ঈদুল ফিতরের প্রথম ও প্রধান জামায়াত অনুষ্ঠিত হয়।

এতে ইমামতি করেন গোপালগঞ্জ জামে মসজিদের পেশ ইমাম মাওলানা মুফতি হাফিজুর রহমান।

সৌদি আরবের একটি ঈদগাহের আদলে সদ্য নির্মিত আধুনিক কেন্দ্রীয় পৌর ঈদগাহ ময়দানে প্রায় ১৫ হাজারের অধিক ধর্মপ্রাণ মুসল্লি ঈদের নামাজ আদায় করেন।

এছাড়া এখানে প্রথমবারের মতো পৃথকভাবে মহিলাদের জন্য ঈদের জামায়াত অনুষ্ঠিত হয়। ঈদের নামাজ শুরুর আগে সদ্য বিদায়ী গোপালগঞ্জ পৌর মেয়র কাজী লিয়াকত আলী সুষ্ঠু ও সুশৃঙ্খলভাবে ঈদের নামাজ আদায়ের আহŸান জানিয়ে সংক্ষিপ্ত বক্তব্য রাখেন।

নামাজের খুৎবা শেষে ১৯৭৫ সালের ১৫ ই আগষ্টে বঙ্গবন্ধু ও তাঁর পরিবারের নিহত সকল শহীদের রুহের মাগফিরাত কামনা করা হয়। এছাড়া মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও গোপালগঞ্জ-২ আসনের বারবার নির্বাচিত সংসদ সদস্য আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য আলহাজ্ব ড. শেখ ফজলুল করিম সেলিম এবং তার পরিবারের সকল সদস্যের সুস্বাস্থ্য ও দীর্ঘায়ু কামনা করে বিশেষ মোনাজাত ও দোয়া করা হয়।

এ সময় মহিলাদের জন্য পৃথকভাবে তৈরি নামাজের স্থানে গোপালগঞ্জের জেলা প্রশাসক শাহিদা সুলতানা ও পুলিশ সুপার আয়েশা সিদ্দিকা এবং পুরুষদের জন্য তৈরি নামাজের স্থানে গোপালগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও জেলা পরিষদের প্রশাসক বীরমুক্তিযোদ্ধা এমদাদুল হক চৌধুরী, চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ সাহাদাত হোসেন ভূঁইয়া, সাবেক পৌর মেয়র কাজী লিয়াকত আলী, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মো. রাশেদুর রহমান, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. আব্দুর রহমান, নিহাদ আদনান তাইয়ান, মো. খাইরুল আলম, সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. মহসিন উদ্দিন, সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক রফিকুল ইসলাম মিটু, পৌর প্রশাসনিক কর্মকর্তা হারুন অর রশীদ, কাউন্সিলর আল আমীনসহ সকল শ্রেনি-পেশার ধর্মপ্রাণ মুসল্লিরা নামাজ আদায় করেন।

গোপালগঞ্জে প্রথমবারের মতো মহিলাদের ঈদের নামাজ আদায়ের বিষয়ে জেলা প্রশাসক শাহিদা সুলতানা বলেন, সকলের সম্মিলিত প্রচেষ্টায় প্রথমবার মহিলাদের ঈদের জামায়াত অনুষ্ঠিত হয়েছে। জামায়াতে মেয়েদের নামাজ আদায়ের বিষয়টি খুবই ব্যতিক্রম।

তিনি আরোও বলেন, প্রথমবার হলেও তুলনামূলকভাবে অনেকের সাড়া পাওয়া গেছে। মহিলা মুসল্লীরা সুন্দর ও সুষ্ঠভাবে আনন্দের সাথে নামাজ আদায় করেছেন।

এদিকে, ঈদগাহের পুন:নির্মাণ ও করোনা মহামারীর কারণে দীর্ঘ কয়েক বছর পর কেন্দ্রীয় পৌর ঈদগাহে নামাজ আদায় করতে পেরে আপ্লুত হন গোপালগঞ্জের ধর্মপ্রাণ মুসল্লিরা।

দীর্ঘদিন পর ঈদের নামাজ আদায় করতে পেরে উচ্ছ¡াস প্রকাশ করে গোপালগঞ্জ শহরের বটতলা বাসিন্দা এস এম হুমায়ূন কবীর বলেন, ‘আমি জন্মের পর থেকে এই ঈদগাহে নামাজ আদায় করছি। করোনা এবং ঈদগাহের নির্মাণ কাজ চলমান থাকায় কয়েক বছর আমরা এখানে ঈদের নামাজ আদায় করতে পারিনি। এ বছর নতুন আদলে নির্মিত আধুনিক একটি ঈদগাহে নামাজ আদায় করতে পেরে খুবই খুশি এবং আনন্দ বোধ করছি।’

ঈদের নামাজ আদায় করতে আসা সদর উপজেলার ইসলাম পাড়ার আরেক মুসল্লি রেজোয়ান আহমেদ চৌধুরী বলেন, ‘গোপালগঞ্জ পৌর ঈদগাহে বিগত তিন বছর উন্নয়নমূলক কাজ করার জন্য ঈদের নামাজ অনুষ্ঠিত হয়নি। আজ ঈদের নামাজ পড়তে পেরে নিজের মধ্যে একটা ভালো লাগা কাজ করছে। এক সাথে কয়েক হাজার মানুষ নামাজ আদায় করতে পেরেছে, এটাও অনেকটা আনন্দের।’

-লিয়াকত হোসেন লিংকন

এই বিভাগের আরও খবর


AllEscort