,

কনের সাজে ভাবি: কাজীর দণ্ড, বরের জরিমানা

জেলা প্রতিনিধি, দিনাজপুর: বৃহস্পতিবার রাত ১০টা। বাড়ির বারান্দার আবছা আলোতে বসেছে বিয়ের আসর। কাজী রেহান রেজা বিয়ে পড়া শুরু করবেন ঠিক সেই মুহূর্তে বাড়ির বাহির থেকে শোনা গেল, বিয়ে বাড়িতে ম্যাজিস্ট্রেট আসছেন।

এই খবরে কনের (১৪) ভাবি নিজেই কনের আসরে বসলেন। কিন্তু বেরসিক নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট বিয়ের আসরের এই সাজানো নাটক ধরতে পেরে কাজীকে ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে ছয় মাসের কারাদণ্ড ও বর রুবেল হোসেনকে (৩০) দুই হাজার টাকা জরিমানা করেন।

ঘটনাটি দিনাজপুরের বিরামপুর উপজেলার খানপুর ইউনিয়নের ন্যাটাশন গ্রামে। দণ্ডপ্রাপ্ত কাজী রেহান রেজা (৪৭) ওই ইউনিয়নের নিকাহ রেজিস্টার ও চেংমারী গ্রামের হুমায়ুন রেজার ছেলে। পাত্র রুবেল হোসেন জেলার নবাবগঞ্জ উপজেলার কুশদহ ইউনিয়নের সেকেন্দার আলীর ছেলে।

বিরামপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট পরিমল কুমার সরকার জানান, বৃহস্পতিবার রাতে খানপুর ইউনিয়নের ন্যাটাশন গ্রামে ষষ্ঠ শ্রেণিতে পড়ুয়া এক শিক্ষার্থীর বিয়ে হচ্ছে এমন খবর পাই। পরে থানা পুলিশকে সাথে নিয়ে ঘটনাস্থলে উপস্থিত হই। প্রশাসনের উপস্থিতি টের পেয়ে বিয়ের কাজী পালানোর চেষ্টা করেন এবং কনের ভাবি তাৎক্ষণিক কনের বিয়ের আসর থেকে সরিয়ে নিজেই কনের আসরে বসেন। ঘটনাস্থল থেকে কাজী ও বর ও কনের ভাবিকে আটক করা হয় এবং সেখানে ভ্রাম্যমাণ আদালতে মাধ্যমে কাজী রেহান রেজাকে ছয় মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ড ও বর রুবেল হোসেনকে দুই হাজার টাকার জরিমানা করা হয়।

নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আরও জানান, ষষ্ঠ শ্রেণিতে পড়ুয়া ওই ছাত্রীকে ১৮ বছর বয়স না হওয়া পর্যন্ত বিয়ে দেবেন না এমন স্বীকারোক্তিতে মুচলেকা নিয়ে কনের ভাবি ও পরিবারের অন্যান্যদের ছেড়ে দেওয়া হয়।

এই বিভাগের আরও খবর


AllEscort